নোটিশ :
জরুরী ভিত্তিতে সারাদেশে বিভাগীয় ব্যুরো প্রধান, জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ পর্যায়ে সাংবাদিক নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহী প্রার্থীগণকে সিভি, জাতীয় পরিচয়পত্রের স্কান কপি ও সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের ছবির সাথে নিজের লেখা একটি সংবাদ ই-মেইলে পাঠাতে হবে। ই-মেইল :sidneynews24@gmail.com
শিরোনাম :
রেল শুধু বাড়ি পৌঁছায় না; খুঁজে দেয় জীবনসঙ্গী মায়ের পোট্রের্ট – অহনা নাসরিন খেলা – অহনা নাসরিন|| সিডনিনিউজ রাজকন্যা লতিফার অবিলম্বে মুক্তি চায় জাতিসংঘ জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহকে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির দাবীতে ময়মনসিংহে স্মারকলিপি রাজশাহীর পুঠিয়ায় পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা একটি মৃত্যু অতঃপর কিছু প্রশ্ন।। কলমেঃ অহনা নাসরিন সন্ধ্যা নামতেই কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে বসে মাদকের আসর আত্মনির্ভরশীলতাই সফলতা অর্জনের একমাত্র পথ – আব্দুর রহিম হাওলাদার (রাজু) রাজশাহীতে হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে অবৈধভাবে বালু তুলছেন প্রভাবশালীরা দৌলতখানে গাজাসহ এক মাদক সেবীকে আটক করেছে এসআই মোস্তফা ভোলার ভেদুরিয়ায় ব্যবসায়ীর ভোগ দখলিয় জমি যবর দখল করতে ভূমিদস্যুদের পায়তাড়া মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ কুমিল্লা জেলার যুগ্ম আহ্বায়ক হলেন কামরুজ্জামান জনি ও আতিকুর রহমান কানাডায় বড়দিন উদযাপনে সতর্কতা নিজের বেতনের টাকায় দরিদ্রদের বাড়ি খাদ্য নিয়ে যাবেন ইউএনও নাহিদা ভোলার শিবপুরে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ইব্রাহীম চেয়ারম্যান টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্ভোধন সকলের ভালোবাসায় এগিয়ে যাচ্ছে ভিক্টোরিয়া ই-কমার্স ফোরাম, দুই হাজার বেকারের কর্মসংস্থান। শোক সংবাদ। সিডনিনিউজ২৪ডটকম ধনী দেশগুলোর বর্তমান ভূমিকার সমালোচনা কক্সবাজার নাগরিক সমাজের। ভোলার পশ্চিম ইলিশায় সারকারি খাল ভরাট করে জমি দখল করে নিচ্ছে “ফাইভ ষ্টার” ব্রিক্স
কর্মকর্তার ‘বৈশাখী ইলিশ আনতে’ লকডাউন ভেঙে স্পেশাল ট্রেন

কর্মকর্তার ‘বৈশাখী ইলিশ আনতে’ লকডাউন ভেঙে স্পেশাল ট্রেন

মারিয়া হাসান, চট্টগ্রামঃ- রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার জন্য ‘পয়লা বৈশাখের ইলিশ’ আনতে একটি স্পেশাল ট্রেন চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুর গিয়েছিল বলে অভিযোগ উঠেছে।  প্রায় ২৫ কেজি ইলিশ মাছ আনতে ট্রেনে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের ২৫ কর্মকর্তা-কর্মচারীও ছিল বলে জানা গেছে।

রেলওয়ের বাণিজ্যিক ও পরিবহন বিভাগ সূত্রে জানা যায়, রেলমন্ত্রীর নির্দেশে ১৩ এপ্রিল বিভিন্ন স্টেশনে জরুরি ভিত্তিতে কিছু বেতন ও রেলের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পেনশন ভাতা দিতে চট্টগ্রাম রেলস্টেশন একটি স্পেশাল ট্রেন ছেড়ে যায়।

ওই ট্রেনে থাকা একাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারী জানিয়েছেন, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় দেশে লকডাউন চলছে।

এর মধ্যেও বেতন, পেনশনের টাকা দিতে গিয়েছি। তবে ডিআরএম (বিভাগীয় রেলওয়ে ম্যানেজার) এর জন্য ইলিশ মাছ আনতে চাঁদপুর স্টেশনে পাঠানোটা সত্যিই কষ্টের।

ট্রেনে থাকা একাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারী জানান, রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের সহকারী বাণিজ্যিক কর্মকর্তাসহ জিআরপি, আরএনবিসহ মোট ২৫ রেল কর্মকর্তা-কর্মচারী ছিলেন স্পেশাল ট্রেনটিতে। সকালে ট্রেনটি চট্টগ্রাম রেলস্টেশন থেকে প্রথমে ফেনী স্টেশন মাস্টারকে টাকা দেয়। এরপর লাঙ্গলকোট হয়ে লাকসাম গিয়ে লাকসামের স্টেশন মাস্টারকে টাকা দেওয়া হয়।

জানা গেছে, এ সময় লাকসামের স্টেশন মাস্টার ট্রেন আবার আবার উল্টো পথে চাঁদপুর না গিয়ে চাঁদপুরের স্টেশন মাস্টারের টাকাগুলো তাকে দিয়ে যেতে বলেন। তিনি পরদিন এ টাকা চাঁদপুরের স্টেশন মাস্টারের কাছে পৌঁছে দেবেন বলে জানান। এ সময় চাঁদপুরের স্টেশন মাস্টারের সঙ্গে ফোনে কথা বলে সমন্বয় করে নেন তিনি। তখন ট্রেনে থাকা সহকারী বাণিজ্যিক কর্মকর্তা ওমর ফারুক রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা আনসার আলীর অনুমতি নিয়ে চাঁদপুরের টাকা লাকসামের স্টেশন মাস্টারকে বুঝিয়ে দিয়ে লাকসাম থেকে কুমিল্লা হয়ে চৌমুহনী-নোয়াখালীর স্টেশন মাস্টারকে টাকা বুঝিয়ে দিয়ে ফের চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা দেন।

রেলের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জানান, এসব শেষ করে ট্রেনটি সন্ধ্যা ৭টায় লাকসাম আসলে ডিআরএম সাদেকুর রহমান ট্রেনটি যে কোনোভাবে চাঁদপুর যাওয়ার নির্দেশ দেন। তখন ট্রেনে থাকা প্রায় সবাই বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ দেখান। চাঁদপুরের বিষয়টি সমন্বয় করার পরও চাঁদপুর যেতে বাধ্য হওয়ায় তারা ক্ষোভ জানান। তবে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নির্দেশ মেনে ট্রেনটি চাঁদপুর নিয়ে যান চালক বখতিয়ার। পথিমধ্যে লাকসাম স্টেশন থেকে চাঁদপুরের টাকাও নেয়া হয়। ট্রেন চাঁদপুরে পৌঁছে সেখানকার স্টেশনে গিয়ে স্টেশন মাস্টারকে টাকাগুলো বুঝিয়ে দেওয়া হয়। এরপর ট্রেনটি দাঁড়িয়ে থাকে।

তারা আরো জানান, এ সময় চাঁদপুর স্টেশনের টিটিই মহিউদ্দীন এসে বলেন ট্রেন এখন যাবে না। এই ট্রেনে করে ডিআরএম স্যারের ইলিশ মাছ যাবে। গাড়ি কিছুক্ষণ থামান। এরপর বৈশাখী ইলিশ মাছ তোলার জন্য চাঁদপুর স্টেশনে প্রায় ৪০ মিনিট গাড়ি অপেক্ষায় থাকে।

ওই কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা অভিযোগে জানান, পয়লা বৈশাখে ডিআরএমকে ইলিশ উপহার দিতে চাঁদপুর স্টেশনের টিটিই মো. মহিউদ্দিন বারবার ফোন দিচ্ছিলেন। এরপর টিটিই মহিউদ্দিন ২৫ কেজির মতো ইলিশ মাছ ইঞ্জিন রুমে তুলে দিলে চাঁদপুর স্টেশন থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে ট্রেনটি। তখন রাত সাড়ে ৯টা। পরবর্তীতে পুনরায় লাকসাম হয়ে ট্রেনটি রাত ১২টার দিকে চট্টগ্রাম পৌঁছায়।

শুধু ইলিশ মাছ আনতে সরকারি তেল অপচয় করে ২৫ কর্মকর্তা-কর্মচারীর হয়রানি ও সময় অপচয় করায় ট্রেনে থাকা প্রায় সবাই ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

নাম প্রকাশ করা শর্তে জিআরপি  ও আরএনবির দুই কর্মকর্তা সিডনিনিউজকে বলেন, ‘করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকবিলায় প্রায় সারা দেশে লকডাউন চলছে। কুমিল্লা, লাকসাম, চাঁদপুরও লকডাউন চলছে।

এর মধ্যে সরকারি নির্দেশনায় ডিউটি করতে গেছি। কিন্তু সেখানে সামান্য কিছুর জন্য ২৫ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে অপ্রয়োজনে চাঁদপুর যেতে হয়েছে। যেটা সত্যিই দুঃখজনক। আমাদেরও পরিবার-পরিজন আছে। আমাদের ইচ্ছে আছে। এ ঘটনা সত্যি আমাদের ব্যথিত করেছে। যা অত্যন্ত দুঃখজনক’।

এ প্রসঙ্গে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা আনসার আলী সিডনিনিউজকে বলেন, ‘বেতন ও পেনশনের টাকা দিতে স্পেশাল ট্রেনটি চট্টগ্রাম রেলস্টেশন থেকে ছাড়া হয়েছিল। এ ট্রেনে করে ইলিশ মাছ আনার বিষয়ে আমি কিছু জানি না। তবে ফোনে ডিআরএম স্যার আমাকে ট্রেন অবশ্যই যাতে চাঁদপুর যায়, সে বিষয়ে বলেছিলেন’।

এ সব বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় রেলওয়ে ম্যানেজার (ডিআরএম) সাদেকুর  রহমানকে ফোন করলে তিনি ব্যস্ততা দেখিয়ে এই প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।


Leave a Reply

Your email address will not be published.




এটি হাসনা ফাউন্ডেশনের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান, এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা,ছবি,অডিও,ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা বেআইনি । copyright© All rights reserved © 2018 sidneynews24.com  
Desing & Developed BY ServerNeed.com